প্রধানমন্ত্রীর স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে যুবলীগকে স্মার্ট হতে হবে – পটুয়াখালী ও বরগুনায় বদিউল আলম

প্রধানমন্ত্রীর স্মার্ট বাংলাদেশ গড়তে যুবলীগকে স্মার্ট হতে হবে – পটুয়াখালী ও বরগুনায় বদিউল আলম

আমার পটিয়া কম : যুবলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম দক্ষিণ বঙ্গের পটুয়াখালী ও বরগুনায়  যুবলীগকো শক্তিশালী ও সংগঠিত করতে সাংগঠনিক সফরে রয়েছেন।  এই সফরে তিনি  বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার ঘোষণা দিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রীর এই ঘোষণা বাস্তবায়ন করতে হলে, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রতিটি কর্মীকে স্মার্ট হতে হবে। তিনি শুক্রবার (১৩ জানুয়ার) পটুয়াখালী জেলার  দশমিনা, বাউফল এবং বরগুনা জেলার তালতলী ও পাথরঘাটা উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখছিলেন।

তিনি বলেন পোশাকে স্মার্ট নয় ; স্মার্ট হতে হবে জীবনের প্রতিটি কাজে।  তিনি প্রধানমন্ত্রীর স্মার্ট বাংলাদেশের চারটি ভিত্তির কথা উল্লেখ করে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী স্মার্ট বাংলাদেশের জন্য ৪টা ভিত্তি ঠিক করে দিয়েছেন।

সেগুলো হলো স্মার্ট সিটিজেন অর্থাৎ আমাদের প্রত্যেকটা সিটিজেন প্রযুক্তি ব্যবহারে দক্ষ হবে।

স্মার্ট ইকোনোমি অর্থাৎ ইকোনোমির সমস্ত কার্যক্রম আমরা প্রযুক্তি ব্যবহার করে করবো

স্মার্ট গভর্নমেন্ট যেটা ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগ সরকার অনেকটা করে দিয়েছে এবং আমাদের সমস্ত সমাজটাই হবে স্মার্ট সোসাইটি।

এই স্মার্ট বাংলাদেশ, স্মার্ট সোসাইটি গড়তে হলে যুবলীগের প্রতিটি নেতা-কর্মীকে অগ্রনী ভূমিকা রাখতে হবে।  তাদের নিজেদেরকে স্মার্ট হতে হবে।

তিনি বলেন বার বার আঘাত এসেছে, সামনেও আসবে উল্লেখ করে  তিনি বলেন , যুবলীগ এসব বাধা-বিঘ্নকে পরোয়া করে না।

তিনি বলেন, যারা দলের প্রতি কমিটেড, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং শেখ হাসিনার আদর্শ ধারণ করে, যাদের প্রযুক্তি জ্ঞান আছে, মেধা এবং বুদ্ধি দিয়ে কর্মীদের উজ্জীবিত করতে পারবে তাদেরকেই যুবলীগের দায়িত্ব দেয়া হবে।

দশমিনা উপজেলা পরিষদ অডিটরিয়ামে বিকেলে অনুষ্ঠিত বর্ধিত সভায় সভাপতিত্ব করেন উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মো. নাসির উদ্দিন পালোয়ান।

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন  কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী মো. মাজহারুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট শামীম আল সাইফুল সোহাগ, কেন্দ্রীয় যুবলীগের উপ-বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক রাসেদুল হাসান সুপ্ত, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য মো. মাকসুদুর রহমান।

বর্ধিত সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন পটুয়াখালী জেলা যুবলীগের সভাপতি এডভোকেট সহিদুল ইসলাম সহিদ।

বিশেষ বক্তা ছিলেন পটুয়াখালী জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট সৈয়দ মো. সোহেল।

বর্ধিত সভা সঞ্চালনা করেন দশমিনা উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট অরূপ কুমার কর্মকার।

যুবলীগের বর্ধিত সভা উপলক্ষে উপজেলার বিভিন্ন ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন যুবলীগের নেতা কর্মীরা মিছিল নিয়ে বর্ধিত সভাস্থলে উপস্থিত হন। হাজার হাজার নেতা-কর্মীর উপস্থিতিতে এক পর্যায়ে যুবলীগের বর্ধিত সভা জনসভায় রূপ নেয়।

উল্লেখ, যুবলীগের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক বদিউল আলম তৃণমূল থেকে কেন্দ্রীয় পর্যায়ে যুবলীগের অন্যতম নেতা। চট্টগ্রামের পটিয়া পৌরসভার একটা ওয়ার্ডের ছাত্রলীগের কর্মী হিসেবে উপজেলা ছাত্রলীগ, জেলা ছাত্রলীগ এবং কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের নেতৃত্বের অভিজ্ঞতা সম্পন্ন মাঠ পর্যায়ের বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার আদর্শের জন্য প্রাণ দিতে প্রস্তুত থাকা একজন নেতা।

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পটিয়া থেকে দলীয় মনোনয়ন নেয়ার জন্য এলাকার আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ এবং সহযোগী সংগঠনের নেতা কর্মী ছাড়াও সাধারণ মানুষের চাপ আছে তার প্রতি। তিনি সময় পেলেই পটিয়া ছুটে আসেন এবং এলাকাবাসীর সুখদুঃখে তাদের সাহায্য সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন।

Related Articles