পটিয়ায় বোটানিক্যাল গার্ডেন ও স্টেডিয়াম হবে; গণসংযোগকালে- এম এ মতিন

পটিয়ায় বোটানিক্যাল গার্ডেন ও স্টেডিয়াম হবে; গণসংযোগকালে- এম এ মতিন

পটিয়া (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা :  ৩০ ডিসেম্বর বেলা ২ টায় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-১২ (পটিয়া) আসন থেকে বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্ট মনোনীত পটিয়ার সুফিবাদী শান্তিপ্রিয় জনতার সমর্থিত দলের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মাওলানা এম.এ মতিন তার মোমবাতি প্রতীকের সমর্থনে পটিয়া হাইদগাঁও ইউনিয়নের তেতুল তল, দক্ষিণ হাইদগাঁও, দিঘীর পার, পূর্ব গাঁও সহ বিভিন্ন গ্রামে নির্বাচনী গণসংযোগ করেন।

গণসংযোগকালে বিভিন্ন স্থানে তিনি পথ সভায় বক্তব্য রাখেন, তার বক্তব্য বলেন সাবেক মহকুমা এই পটিয়ায় বিগত শাষক গোষ্টি দির্ঘদিন ক্ষমতায় থাকলেও পরিকল্পিতভাবে যুগের প্রয়োজন মত পটিয়ার উন্নয়ন ও মানুষের সামাজিক জীবন নিরাপদ রাখতে ব্যর্থ হয়েছে।

তাই পটিয়ার মানুষ পরিবর্তন চাই, এই পরিবর্তনের জন্য আমি এবার গোটা পটিয়ার তৃণমূলের সবখানে মোমবাতির জয়-জয়কার ধ্বনি শুনতে পাচ্ছি। যে দিকে যাচ্ছি সর্বস্তরের সাধারণ মানুষ আমাকে মোমবাতির নিশ্চয়তা তথা স্বাগতম জানাচ্ছে,হে আমার পটিয়াবাসী আমি নির্বাচিত হতে পারলে পটিয়ায় একটি ভোটানিক্যাল গার্ডেন ও একটি ষ্ট্যডিয়াম নির্মাণ করে আধুনিক পটিয়া গড়ে তোলার প্রদক্ষেপ গ্রহণ করব।

তিনি আরো বলেন আমার পটিয়াবসীর সামাজিক জীবন শান্তিময় তথা নিরাপদ করার জন্য কিশোর গেঙ্গ, ইয়াবা, পেনসিডিল মাদক তথা চোরাকাবারীদের কঠোর হস্তে দমন সহ সকল ধর্মের স¤প্রীতির বন্ধনে একটি স্বাভাবিক সুন্দর বাসযোগ্য পরিবেশ উপহার দিতে আমি আপনাদের নিকট ওয়াদে করে গেলাম। তিনি আরো বলেন অপরাধ দমনে আমি কাউকে বিন্দুমাত্র ছাড় দেব না আপনারা একবার পরীক্ষা করুন।

আশা করি আপনারা আমাকে মোমবাতি মার্কায় ভোট দিয়ে এই পটিয়ার খেদমত করার সুযোগ দেবেন,আমি আমার পটিয়াবসীর জীবন মানের উন্নতি ও সার্বিক উন্নয়নে আমার জীবনকে উৎসর্গ করতে চাই। এ সময় তার সাথে ছিলেন প্রেসিডিয়াম সদস্য এম. সোলায়মান ফরিদ, কেন্দ্রেয় নেতা মুহাম্মদ জসিম উদ্দিন,ইসলামী ফ্রন্ট নেতা গাজ্বী মন্জুরুল করিম রেফায়ী রেজভী, মাওলনা এয়ার মুহাম্মদ পেয়ারু, মুহাম্মদ লেয়াকত আলী, মাষ্টার মুহাম্মদ আলী খাঁন, এডভোকেট মুহাম্মদ মোজাম্মেল হক, মজলিশে শুরা সদস্য মুহাম্মদ লেয়াকত আলী, যুবনেতা হাবিবুল মুস্তাফা সিদ্দিকি, যুবনেতা মুহাম্মদ জামাল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম তৈয়্যব প্রমূখ।

Related Articles